অদম্য শিক্ষার্থী

imagesবাসে করে উত্তরবংগের একটা জেলায় যাচ্ছিলাম। নিঃসংগ যাত্রা। বাসে পাশের সিটে একটা ছেলে বসেছে গায়ে উদ্ভাসের গেঞ্জি পরা । জিজ্ঞেস করলাম আপনি কি বুয়েটিয়ান? জানা গেল ও বুয়েটে ফার্স্ট ইয়ারে পড়ে। কথা বলার একজন  সংগী পেয়ে গেলাম। সারা পথে অনেক গল্প হলো।
কথায় কথায় সৌরভ* অন্যরকম একটা গল্প বললো। ও খুব মেধাবী একজন ছাত্র ছিলো। গনিত খুব ভালো লাগতো। কিন্তু ওর বাবার আর্থিক সংগতি অতোটা ভালো ছিলোনা। কলেজ পাশ করার পর – ওর বাবা বললেন , বাবা তোকে মনে হয় আর পড়াতে পারবোনা। এবার ঢাকায় গিয়ে একটা চাকরি – বাকরি কর। কিন্তু ‘সৌরভের’ ইচ্ছা ও বুয়েটে পড়বে। ওর ক্লাসের সব ফ্রেন্ডরা বুয়েট ভর্তি কোচিংয়ে ঢুকে পড়েছে। কিন্তু কোচিংয়ের এই খরচ মেটানো ওর পক্ষে সম্ভব না। আত্নীয়স্বজন কারো কাছে কোন সাহায্য পেলোনা। তখন ও অদ্ভুত একটা কাজ করলো। ওদের বাড়ি বর্ডারের কাছে। এই জায়গাটায় খুব মাদক চোরাচালানী হয়। ও হাতেনাতে এই চোরাকারবারীদের ধরে পুলিশে দেয়ার ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় করা শুরু করল। একেকজন থেকে ২০০০-৩০০০ করে। প্রায় ৩০ হাজার টাকা হওয়ার পর ও ঢাকায় চলে এলো। একটা মেসে উঠল। আর কোচিংয়ে ভর্তি হলো। টানা মন দিয়ে পড়ল। তারপর বুয়েটে চান্স পেয়ে গেলো।
কিন্তু আজকাল সেই কাজটার জন্য ও খুব হীনমন্যতায় ভ্যগে। খুব অপরাধবোধ কাজ করে। আমাকে বলল, ভাই আমি যে অন্যায় করেছি এ থেকে মুক্তির পথ কি? আমি কিছুক্ষন নির্বাক চেয়ে থাকলাম। কিছু বলার মতো খুঁজে পাচ্ছিলাম না।

*ছদ্মনাম

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *